বেনামী পাঁচ /গৌতম বাড়ই

বেনামী পাঁচ
গৌতম বাড়ই


কবিতা- ১ 

কবিতাকে তুমি কোনদিন কবিতা বলোনি, 
বলেছিলে ধূর্ততা।
আজন্মেয় এক শঠতা ,
কোথাও বারুদ তো কোথাও গোলাপের কাঁটা !
বাড়ির মগচালে চড়ুই আর বাস্তুসাপ 
খুব গা ঘেঁষাঘেষি করে থাকে ,
তাদের রাম- রাধা- মহম্মদ কিছুই নেই 
তবে শতাব্দীর বিস্ফারিত ভালোবাসা আছে 

কবিতা-২

রাত্রির মরণের ভেতর কিছু অযান্ত্রিক কেলো
কিছু হাত ধরবার কিছু ছেড়ে দিতে হয় 
জানি চুপিচুপি ঝরে পড়ে হিম আর আলো
এই অন্ধকার উদ্দীপ্ত কামনার 
কে কার কবেকার নিজেকে বেসেছে ভালো?
আবির করে দিতে হয় নেত্রগোলক
শোনো মধুবনী সজ্জায় সাজাব অন্তরঙ্গ
চরা আর চরাচর প্রস্ফূটিত জোছনার যৌবনে
আদি আর অনন্ত কেমন মিলিয়ে যায় 
পুকুরের শ্যাওলা খেয়ে ফেলে চুপিচুপি 
এখন মরসুমী বকেরা কেমন 
শুনেছি সমুদ্রের কাছে এক নোনাদেশ ছিল
যার আঠারবিঘা বুক ভেঙ্গে উঠে আসে 
পরাণসমুদ্রে এখনও বসতবাড়ি গড়া হলোনা
গোটা পৃথিবীটাই শরণার্থী শিবির আর
আদি বাসিন্দা কতিপয় কিছুজন


কবিতা-৩ 

ছেড়ে যেতে চায় কেউ কেউ 
তবুও কেমন যেন আটকে থাকে ক্ষতের মতন
যেমন করে পুষছি আমি হাঁটুর কাছে অপছন্দের 
জন্মগত পানসে তিল 
আটকে থাকে এঁটুলি আর যখন-তখন 
গন্ধপোকা সারাটা ঘর পাড়াময় 
রসময়ের চাটনি আছে 
পুরানো সেই ট্রেনের খামে 
ও নিধিরাম বন্ধু আমার! সোনা আমার! 
কাল হাত খুবলে বের করিস ভগবানের শ্রী লাঠিটি


কবিতা-৪ 

বৃহন্নলারা ঠনঠন করে আসে চুপিসাড়ে 
হাতোয়া বাজায় খিল্লী করে 
বলে, নে মাদারী যৈবন দেখ-----
এ অঞ্চলে এখন আর একটিও জেন্ডার নেই
সব ক্লীবলিঙ্গদের ভাটপাড়া
বৃহন্নলাদের কাঁকন বাজে ঝমঝমিয়ে সারাগঞ্জে
সায়রার সাথে পান্নাবিবি সারারাত জাগে 
অষ্টপ্রহর জেগে থাকে হাসপাতালে বারান্দাতে
বিজলিরাণী মৃত্যুঘোরে 
একেই বলে পরম আত্মীয় আর  ভালোবাসা 
ওরা হাততালি দেয় ভিক্ষে করে একসাথে
এক হাঁড়িতে রেঁধে বেড়ে
দশ-দশজনে খায় গোল হয়ে বসে 
পয়মন্ত মনে ধার ধারেনা কারোর কাছে শুধু ;
যেটুকু করে  ফুল মাস্তানি-----


কবিতা-৫ 

রেইন কিংবা ভ্যানতারা 
যেটুকু চমকে যায় বিকশিত দিন 
ধান্দা জানেনা পরিন্দার সহচরেরা 
ততটুকু জানে অনিয়মিত জলপান হরিণখোলা
জ্ঞাননোট প্রথমে তারপর নগরের কামসূত্র
কোন ইচ্ছে বা উচ্ছের মুখে পোরা নেই 
হা বসন্ত হা বসন্ত রব !
সাজানো বাগান শুকিয়ে গেল বর্ষার আগমনে 
আগামীতে কোন সুদূরের পানসি ভাসাবে
ঠিক করে দাও কৃষ্ণঠাকুর 
তোমার হাতে তো মোহনবাঁশি

পেজে লাইক দিন👇

Comments

  1. প্রতিটি কবিতা পড়লাম দাদা । খুব ভালো ভালো কবিতা

    ReplyDelete
    Replies
    1. অনেক শুভেচ্ছা আর ধন্যবাদ ভাই। আরও কবিতায় আরও শব্দে নতুন করে তোলো এ ভুবন--- এই চাই। 🌹

      Delete

Post a Comment

Trending Posts

‘পথের পাঁচালী’ এবং সত্যজিৎ রায় : একটি আলোচনা/কোয়েলিয়া বিশ্বাস

সনাতন দাস (চিত্রশিল্পী, তমলুক) /ভাস্করব্রত পতি

প্রাচীন বাংলার জনপদ /প্রসূন কাঞ্জিলাল

সর্বকালের প্রবাদপ্রতিম কবিসত্তা শক্তি চট্টোপাধ্যায় /প্রসূন কাঞ্জিলাল

শঙ্কুর ‘মিরাকিউরল’ বড়িই কি তবে করোনার ওষুধ!/মৌসুমী ঘোষ

বাংলা ব্যাকরণ ও বিতর্কপর্ব ১৮/অসীম ভুঁইয়া

মহাভারতের স্বল্পখ্যাত চার চরিত্র /প্রসূন কাঞ্জিলাল

ছোটোবেলা বিশেষ সংখ্যা -১০৯