বিজয় চক্রবর্তীর গদ্যগ্রন্থ 'অনুভবে সুন্দরবন' প্রকাশে বসলো চাঁদের হাট


বিজয় চক্রবর্তীর গদ্যগ্রন্থ 'অনুভবে সুন্দরবন' প্রকাশে বসলো চাঁদের হাট 


রবিবার সকালে মেদিনীপুর গোপগড় ইকোপার্ক সভাকক্ষে প্রকাশ পেল 'অনুভবে সুন্দরবন' নামে একটি গল্প ও গদ্যগ্রন্থ। লেখক বিজয় চক্রবর্তী। পেশায় তিনি বনদপ্তর আধিকারিক। 'সুন্দরবনের সমস্ত ফিল্ড স্টাফ ও পরিবারের সকলকে' উৎসর্গ করেছেন লেখক তাঁর এই বই। চতুর্থ প্রচ্ছদে রয়েছে প্রখ্যাত চিত্রশিল্পী সুব্রত রায় চৌধুরীর আঁকা বনদেবীর ছবি। প্রচ্ছদ করেছেন অর্জন বসু রায় ও বিজয় চক্রবর্তী। প্রকাশক - জ্বলদর্চি। 
বইতে স্থান পেয়েছে ক্যামেরায় তোলা সুন্দরবনের নানা চিত্র। লেখায় উঠে এসেছে সুন্দরবনের জীবন ও প্রকৃতি। উঠে এসেছে জীবন সংগ্রাম ও নদী জঙ্গলের অপরূপ সৌন্দর্য। তাঁর গদ্য বাস্তব জগতের কাহিনি নিয়ে গড়ে উঠলেও বলবার গুণে তা হয়ে  উঠেছে জীবনের গল্প। বাস্তবিকই গল্প তো জীবন নিয়েই গড়ে ওঠে। তাঁর গদ্যে যুক্ত হয়েছে প্রকৃতিমুগ্ধতা। গদ্য হয়েছে কাব্যধর্মী। পাঠক তাই এ বইতে সুন্দরবনকে অনুভব করতে পারবে নানা ব্যঞ্জনায়। এখানেই লেখক অনন্য।

সুন্দরবন টাইগার রির্জাভের প্রাক্তন ক্ষেত্র অধিকর্তা নীলাঞ্জন মল্লিকের শুভেচ্ছাবার্তায় স্পষ্ট হয়েছে বইয়ের অভিমুখ।

বইপ্রকাশ অনুষ্ঠানকে ঘিরে বসেছিল চাঁদের হাট। গান, আবৃত্তি, স্মৃতিচারণ, আড্ডায় মাতলেন জেলার কবি লেখক, অধ্যাপক, গবেষক, গায়ক, বাচিকশিল্পীরা।

বইটির আনুষ্ঠানিক প্রকাশ করেন পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ডিএফও সন্দীপ কুমার বেরোয়াল। এদিন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন এডিএফও সুভাশিস ঘোষ, কবি, সংগীতশিল্পী স্মৃতি সাহা, তবলাবাদক জ্যোতিপ্রকাশ সাহা, গল্পকার মৌসুমী ঘোষ, কবি-নাট্যকার তাপস কুমার দত্ত, গবেষক নরেন হালদার, কবি রাখহরি পাল, গল্পকার রাজীব ঘোষ, রয়েল একাডেমির অধ্যক্ষ সত্যব্রত দোলই, বাচিকশিল্পী আগমনী কর মিশ্র, হিজলি কলেজের অধ্যক্ষ আশিস কুমার দণ্ডপাট, গল্পকার সন্দীপ দত্ত, কবি শিক্ষক স্বপনকুমার দে, অমিত্রাক্ষর পত্রিকার সম্পাদক অচিন্ত মারিক, পরিবেশবিদ অভিজিৎ দে, কবি সুব্রত দাস, মেদিনীপুর কলেজের অধ্যাপক অমর সাহা, চলচ্চিত্র সমালোচক সিদ্ধার্থ সাঁতরা, সহিত্যানুরাগী স্বাগতা সান্যাল চক্রবর্তী, এডিএফও তথা এই বইয়ের লেখক বিজয় চক্রবর্তী, জ্বলদর্চি পত্রিকার সম্পাদক ঋত্বিক ত্রিপাঠী প্রমুখ। অনুষ্ঠানের সূত্রধর ছিলেন বাচিকশিল্পী সঞ্জীব ভট্টাচার্য।

পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার মুখ্য বনদপ্তর আধিকারিক সন্দীপ কুমার বেরোয়াল লেখকসহ সকলকে শুভেচ্ছা জানান। তিনি বলেন, "এই ধরনের কাজ অবশ্যই প্রশংসনীয়। বইটি পাঠকদের কাছে সম্মান পাবে, আশা করি।"

জ্বলদর্চি পেজে লাইক দিন👇

Comments

Post a Comment

Trending Posts

‘পথের পাঁচালী’ এবং সত্যজিৎ রায় : একটি আলোচনা/কোয়েলিয়া বিশ্বাস

সনাতন দাস (চিত্রশিল্পী, তমলুক) /ভাস্করব্রত পতি

সর্বকালের প্রবাদপ্রতিম কবিসত্তা শক্তি চট্টোপাধ্যায় /প্রসূন কাঞ্জিলাল

ছোটোবেলা বিশেষ সংখ্যা ১১০

শঙ্কুর ‘মিরাকিউরল’ বড়িই কি তবে করোনার ওষুধ!/মৌসুমী ঘোষ

বাংলা ব্যাকরণ ও বিতর্কপর্ব ১৮/অসীম ভুঁইয়া

প্রাচীন বাংলার জনপদ /প্রসূন কাঞ্জিলাল

রাষ্ট্রীয় মূল্যায়ন ও স্বীকৃতি পরিষদ (NAAC) এর মূল্যায়ন ও স্বীকৃতি: উদ্দেশ্য ও প্রস্তুতি - কলেজ ভিত্তিক অভিজ্ঞতা /সজল কুমার মাইতি