দশটি লিমেরিক /টুক পিঁপড়ে/ শুভশ্রী রায়



দশটি লিমেরিক

টুক পিঁপড়ে 

শুভশ্রী রায়


                            (১)
টুক পিঁপড়ে আমার কাছে আমসত্ত্ব চাইছিল
আমি বললাম, শোন বরং গোটা আম ভালো
শুনে পিপীলিকার সে কী বিরক্তি
আমসত্ত্বে তার এমনই আসক্তি!
কে জানে, কোথায় গিয়ে আমসত্ত্ব খাইছিল?

       
                            (২)
টুক পিঁপড়ে খেয়ে ফেলেছে অনেক আইসক্রিম
ফলে ফুসফুসে জমেছে তার বেশ কিছুটা হিম
এখন খালি কাশছে সে খুকখুক
কাশির জেরে শুকিয়ে গেছে মুখ!
সোনা আইসক্রিম বাদ দিয়ে খাওয়া ধরুক ডিম।


                               (৩)
টুক পিঁপড়ে খেতে চাইছে খালি টাটকা তালশাঁস
তাল কারণে আমরাও তো করছি বড় হাঁসফাঁস
এ দিক ও দিক খোঁজাখুঁজি চলছে
তাল করে সবাই এ কথাটাই বলছে
তালশাঁসের খোঁজে সবাই এতাল বেতাল চারপাশ!


                             (৪)
টুক পিঁপড়ে বলছে,খাবে রোজই দশটা আলুর চপ!
ভাজাভুজি দেখলেই সোনা-মুখে ভরছে সে গপগপ
এরপরে আলুর চপও লাগবে যে একঘেয়ে
নয়া কিছু করতে হবে রেসিপি জেনে, চেয়ে
তার জন্য নতুন রকম চপ বানাবো, উপকরণ ঢপ!


                           (৫)
টুক পিঁপড়ে খুব বেশি কান করে খবরটবর শোনে
কখন টিভির খবর শুরু হবে তার জন্য পল গোনে
তবে ইদানীং বাড়াবাড়ি হিংসা দেখে দুখী!
খবর শুনে হয় না সে আগের মতো সুখী
আজকাল রূপকথা পাঠ করে স্বপ্নের জাল বোনে। 


                            (৬)
টুপ পিঁপড়ে লেখাপড়ায় একদম যাকে বলে মেধাবী
দোষের মধ্যে দোষটা গণিতে মনোযোগের অভাবই
সোনা অঙ্ক কষতে কষতেও যে মেঘ দেখে!
খাতায় জ্যামিতি নয়, নীলকণ্ঠ দেয় এঁকে
সহজে সংশোধন হবে না এ তার জম্মগত স্বভাবই।


                               (৭)
টুক পিঁপড়ে ভীষণ বেশি ভালোবাসে আখের রস!
একটি গ্লাসের দাম তো ছিল অল্প আগে, টঙ্কা দশ
এখন একটি গ্লাস বেড়ে হয়েছে কুড়ি
যদিও স্বাদে সে রস অমৃত, নেই জুড়ি
নেই গো টুক এখন আগের মতো আখরসের বশ।


                              (৮)
টুক পিঁপড়ে রোজ বিকেলে পাড়ার পার্কে খেলত
খেলতে খেলতে মাঝেমাঝেই বন্ধু তাকে ঠেলত
একটি দিন দিয়েছিল ভীষণ জোর ঠেলা
সাঙ্গ হ'ল টুকসোনার পার্কে গিয়ে খেলা
মুশ্কিল হ'ত বন্ধু যদি তাকে বেকায়দায় ফেলত!


                             (৯)
টুক পিঁপড়ে চায় মস্ত বড় একটা আবাস বানাতে
বিদেশ থেকে স্বপ্নবাড়ির মাল ও মশলা আনাতে
যদিও আমি তাকে অনেক মানা করেছি
বোঝাতে গিয়ে কঠিন অসুবিধায় পড়েছি
চাইছি আমি তাকে বাড়ি করার হ্যাপা জানাতে!


                            (১০)
টুক পিঁপড়ে সাঁতার কাটতে পারে কী না জানি না
সাঁতার নিয়ে তার বড় বড় কথাও আমি মানি না
সে মনে করে ভালোই সাগর সাঁতার পারবে
আর আমি ভয় করি ঢেউয়ের কাছে হারবে
তার বিপদ হতে পারে তাই কথাটা মাথায় আনি না!

জ্বলদর্চি পেজে লাইক দিন👇

Comments

Trending Posts

‘পথের পাঁচালী’ এবং সত্যজিৎ রায় : একটি আলোচনা/কোয়েলিয়া বিশ্বাস

সনাতন দাস (চিত্রশিল্পী, তমলুক) /ভাস্করব্রত পতি

সর্বকালের প্রবাদপ্রতিম কবিসত্তা শক্তি চট্টোপাধ্যায় /প্রসূন কাঞ্জিলাল

ছোটোবেলা বিশেষ সংখ্যা ১১০

শঙ্কুর ‘মিরাকিউরল’ বড়িই কি তবে করোনার ওষুধ!/মৌসুমী ঘোষ

বাংলা ব্যাকরণ ও বিতর্কপর্ব ১৮/অসীম ভুঁইয়া

প্রাচীন বাংলার জনপদ /প্রসূন কাঞ্জিলাল

রাষ্ট্রীয় মূল্যায়ন ও স্বীকৃতি পরিষদ (NAAC) এর মূল্যায়ন ও স্বীকৃতি: উদ্দেশ্য ও প্রস্তুতি - কলেজ ভিত্তিক অভিজ্ঞতা /সজল কুমার মাইতি