মৃণালকান্তি সামন্ত


মৃ ণা ল কা ন্তি  সা ম ন্ত


স্বপ্নসুন্দরী

দোষী করে দূরে সরে যাবে,
দোষ নেবে না কিছু ?
দোষীর তকমা থেকে --নিজেকে 
সরিয়ে রাখতে চেয়েছিলাম -- 
অক্ষমতার চাদরে মুড়ে।
সেই চাদরের একটা একটা 
ভাঁজ পরিপাটি করে খুলে ফেলে
 নির্ভয় সাহসী করে তুলেছিলে কেন ? 
দোষীর তকমা সেঁটে দেবে বলে ?
 অামি তো নিজেকে শুধু নিজের 
অক্ষমতার স্বপ্নে বিভোর করে ; 
দূর থেকে দেখতে চেয়েছিলাম...
অার পাহাড় - নদী - সাগর - অাকাশ - বাতাসকে কানে কানে বলেছিলাম 
-- ওই দেখো ! কাউকে বলো না কিন্তু -- 
ওই অামার স্বপ্নসুন্দরী -- স্রষ্টার
 সৃষ্টির গরবে -- গরবিনী।
মনোলীনা

মনোলীনা ; রৌদ্র স্নাত দুপুর বেলায় 
তোমার ছবি এঁকেছিলাম মনে মনে।
খেয়াল ছিল না ; তোমাকে গড়তে গিয়ে
নিজেকে একটু একটু করে বে-হিসাবী
করে ফেলেছি।

হিসেব অামার ভালো লাগে না ; 
'হিসেব' -- বড় নিষ্ঠুর,বেদনাদায়ক,
কণ্টকাকীর্ণ,যন্ত্রনাদায়ক। এর মধ্যে
কোন স্নেহ - ভালোবাসা - প্রেম নেই।
তাই হয়তো নিজেকে বে-হিসাবী 
করেছি !

না হলে যে 'তোমাকে' স্নেহ - ভালোবাসা 
- প্রেমে পূর্ণতা দিতে পারতাম না।
অামাকে অারো বে-হিসাবী করে তোলো ;
তাহলে 'তোমাকে' অারো অারো
স্নেহ - ভালোবাসা - প্রেমে - পূর্ণতা দেব!


নীলহৃদয়ে...

শত বন্ধন ছিন্ন করে
প্রলয় ঝড়ের মাঝে দাঁড়িয়ে ;
একশো অাটটি দোকান তন্ন তন্ন 
করে খুঁজে নিয়ে এসেছি 
--সেই নীল শাড়ী। যা পরিয়ে 
তোমার গোপন প্রিয় নিয়ে যাবে 
অাপনার বাড়ি।
হয়তো ; তোমার স্মৃতিতে অামার
কোন চিহ্ন থাকিবে না । যেদিন 
তুমি অামায় সত্যিকারের ভুলে 
যাবে ; সেদিন তোমার হৃদয় 
থেকে উবে যাবে ভালোবাসা।
কাম বিষে জর্জরিত হবে হৃদয়।
সন্তানের জন্ম দিয়ে লালন - 
পালন করতে করতে কেটে যাবে
তোমার সময়।

প্রেম-স্তোত্র

অামার ভালোবাসার কোন ভাষা নেই,
         নীরব ; কিন্তু বোবা নয়।
অামার প্রেমিকার কোন রূপ নেই,
          কিন্তু রূপসী।
অামার ভালোবাসার কোন উত্তাপ নেই,
           কিন্তু তাপ অাছে।
অামার প্রেমিকার হৃদয়ে প্রেমের অনুভূতি নেই,
           কিন্তু প্রেমিকা।
অামার ভালোবাসার কোন রঙ নেই,
           কিন্তু রঙিন।
অামার প্রেমিকার প্রেমে প্রেরণা নেই,
           কিন্তু প্রেয়সী।
অামার ভালোবাসার মৃত্যু নেই,
           কিন্তু মরণশীল।
অামার প্রেমিকার প্রেমে বিচ্ছেদ নেই,
           কিন্তু ছেদ অাছে।
অামাদের প্রেমের মৃত্যু অাছে,
           কিন্তু অমর।


কেউ ভালো নেই

ভালো নেই চন্দ্রিমা,ভালো নেই
দেহ - মনে প্রেমহীনতার ক্লান্তি।
বিশ্বচরাচরে স্পষ্ট হচ্ছে
মানবতার অপমৃত্যু।
অন্ধকার ঘনীভূত হচ্ছে বেকার
যুবকদের চোখে।
কৃষক সমাজ তলিয়ে যাচ্ছে 
মূল্যবৃদ্ধির চোরা স্রোতে।
ক্ষমতার দ্বন্দ্বে ধ্বস্ত হচ্ছে
সমাজ ! তাকে বাঁচানোর 
কেউ নেই ,চন্দ্রিমা কেউ 
নেই।তুমি-অামি-সে
ছাড়া অার কেউ নেই।


-----

Comments

Post a Comment

Trending Posts

‘পথের পাঁচালী’ এবং সত্যজিৎ রায় : একটি আলোচনা/কোয়েলিয়া বিশ্বাস

সনাতন দাস (চিত্রশিল্পী, তমলুক) /ভাস্করব্রত পতি

প্রাচীন বাংলার জনপদ /প্রসূন কাঞ্জিলাল

সর্বকালের প্রবাদপ্রতিম কবিসত্তা শক্তি চট্টোপাধ্যায় /প্রসূন কাঞ্জিলাল

শঙ্কুর ‘মিরাকিউরল’ বড়িই কি তবে করোনার ওষুধ!/মৌসুমী ঘোষ

বাংলা ব্যাকরণ ও বিতর্কপর্ব ১৮/অসীম ভুঁইয়া

মহাভারতের স্বল্পখ্যাত চার চরিত্র /প্রসূন কাঞ্জিলাল

ছোটোবেলা বিশেষ সংখ্যা -১০৯