সৌম্যদীপ চক্রবর্ত্তী || পর্ব - ৩


ইংরেজি সাহিত্য : পর্ব বিন্যাস ও রূপরেখা

পর্ব- ৩ 


সৌ ম্য দী প  চ ক্র ব র্ত্তী

 রেনেসাঁ এবং এলিজাবেথান পিরিয়ড:

আগের পর্বেই বলেছি অনেক পণ্ডিত ও সমালোচক চসার ও তাঁর পরবর্তী সময়কালকে নবজাগরণের উন্মেষকাল বলে অভিহিত করেছেন, আর এই পর্বে আমরা সেই রেনেসাঁ বা রেনেসন্স বা নবজাগরণ এবং এলিজাবেথান পিরিয়ড-এর কিছু বিষয়ের ওপর আলোকপাত করবোI চতুর্দশ শতাব্দীতে ইতালির ফ্লোরেন্স থেকে শুরু হওয়া নবজাগরণের আঁচ ইংল্যান্ডে এসে পৌঁছয় কিছুকাল পরেI ইংল্যান্ডে সাহিত্য-সংস্কৃতি, জ্ঞান-বুদ্ধিচর্চা ও প্রজ্ঞাচর্চায় এক মানবকেন্দ্রিকতা দেখা যায়; ঈশ্বরকেন্দ্রিক জগৎ-ভাবনার জায়গা ক্রমশ নিতে থাকে এক উদার, মানবকেন্দ্রিক ভাবনা। দেখা যায় মানুষ ও তার সকল প্রকার অনুষঙ্গকে জানা, চেনার প্রবল উৎসাহI ধর্মেও এর প্রভাব পড়ে; ক্যাথলিক খ্রীষ্ট ধর্মের নিয়ম ও রীতি সর্বস্বতার বিরোধিতার মধ্যে দিয়ে উত্থান ঘটে উদার, মানবপন্থী প্রটেস্টান্ট খ্রীষ্ট ধর্মেরI নবজাগরণের হাত ধরেই খ্রীষ্ট ধর্মের অন্দরে সংস্কারের বার্তা নিয়ে অবতীর্ণ হয় ‘রেফরমেশন’I এক দিকে মার্টিন লুথার অপর দিকে জন ক্যালভিনের মতো ব্যক্তিত্ব তাঁদের ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক তত্ত্বের মাধ্যমে হাত শক্ত করেন রেনেসাঁ ও রেফরমেশনেরI হেনরি টিউডোরের হাত ধরে ইংল্যান্ডের মাটিতে তখন প্রতিষ্ঠা পেয়েছে টিউডোর সাম্রাজ্যI পরবর্তীতে তাঁর ছেলে অষ্টম হেনরির মৃত্যু এবং প্রবল রাজনৈতিক ও সামরিক ঘাত-প্রতিঘাতের মধ্যে দিয়ে ১৫৫৮ সালে ইংল্যান্ডের রাজ-সিংহাসনে আসীন হন রানি প্রথম এলিজাবেথ এবং এর মধ্যে দিয়েই ইংল্যান্ডের রাজনৈতিক, সামরিক, শিল্প-সংস্কৃতি-সাহিত্যের আঙিনায় এলিজাবেথান পিরিয়ডের সূচনা হয়I ১৬০৩ সালে রানি প্রথম এলিজাবেথের মৃত্যু'র মধ্যে দিয়ে এই যুগের অবসান হলেও অনেকে মনে করেন তাঁর কার্যকালে ঘটা বহু বৈপ্লবিক পরিবর্তনের ফল ভোগ করা জ্যাকোবিয়ান পিরিয়ড (রাজা প্রথম জেমস এর রাজত্বকাল; ১৬০৩-১৬২৫) সমেত পুরো যুগটি হলো 'গ্রেটার এলিজাবেথান পিরিয়ড'।           
এই পুরো সময়কাল ইংরেজি সাহিত্যের স্বর্ণযুগকে সূচিত করে; এই সময়েই আবির্ভাব ঘটে বিশ্ববন্দিত কবি ও নাট্যকার উইলিয়াম শেকসপিয়র-এরI তবে তার বহু আগেই ১৫১৬ সালে থমাস মোর রচিত 'ইউটোপিয়া' এবং ১৫৩২ সালে নিকোলো ম্যাকিয়াভেলি রচিত 'প্রিন্স' এক নতুন যুগের সন্ধান দেয়I স্যার থমাস ওয়ট ও হেনরি হাওয়ার্ডের হাত ধরে ইতালিয় সনেট পা রাখে ইংরেজি সাহিত্যের অঙ্গনেI পরবর্তীকালে স্যার ফিলিপ সিডনি ও এডমান্ড স্পেনসার সনেটকে ইংলিশ আঙ্গিক দেওয়ার প্রবল চেষ্টা করলেও তা সফল ভাবে করেন উইলিয়াম শেকসপিয়রI আঙ্গিক ও ছন্দ-বদ্ধতার বদলের সাথে সাথে সনেটের বিষয়েও তিনি আনেন নতুনত্বI শারীরবৃত্তীয় চাহিদা, ত্রিকোণ-প্রেম, সমকামিতা, বিরাগ, দ্বেষ, অভিমান সহ বহু বিষয়ে নন্দিত তাঁর ১৫৪ টি সনেট ভালোবাসার পরিভাষাকে আমূল বদলে দেয় ও বাস্তবমুখী করে তোলেI পরবর্তীকালে এঁদের পদাঙ্ক অনুসরণ করেছেন স্যামুয়েল ড্যানিয়েল ও মাইকেল ড্রেটনেরাI এছাড়া উল্লেখ করতেই হয় এসময়ে রচিত ৪৮ টি সনেট সম্বলিত সংকলন 'প্যামফিলিয়া টু অ্যামফিলান্থাস'এর কথা যা এসময়ের একমাত্র মহিলা সনেটকার লেডি মেরি রথের লেখাI
নাটকের এই স্বর্ণযুগে শেকসপিয়রের সক্রিয় ভাবে পা রাখার আগেই আমরা দেখি 'ইউনিভার্সিটি উইটস'-দের উত্থানI অক্সফোর্ড ও কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃতি ও ধ্রুপদী সাহিত্যে প্রভূত জ্ঞানার্জনকারী 'ইউনিভার্সিটি উইটস'-দের মধ্যে অন্যতম হলেন জন লিলি, রবার্ট গ্রীন, থমাস লজ ও থমাস কিডI তবে এঁদের মধ্যমনি ছিলেন ক্রিস্টোফার মার্লো, যাঁর লেখা 'ট্যামবারলেইন দি গ্রেট', 'জিউ অফ মালটা', 'ডক্টর ফস্টাস' ধ্রুপদী ট্র্যাজেডির নিয়তিকেন্দ্রিকতাকে দূরে সরিয়ে মানবকেন্দ্রিক ট্রাজেডির রূপদান ও উত্থানে অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছেI তবে ১৫৯৩ সালে মাত্র ২৯ বছর বয়সে তাঁর আকস্মিক মৃত্যু নাট্যজগতে শেকসপিয়রের অবিসংবাদী কর্তৃত্ব স্থাপনের পথ প্রশস্ত করেI ১৫৬৪ সালে স্ট্র্যাটফোর্ড আপন অ্যাভন-এ জন্ম শেকসপিয়র নানান ঘাত-প্রতিঘাত ও দারিদ্র্যের মধ্যে দিয়ে নব্বই এর দশকের প্রথমার্ধে কিছু ইতালীয় ও ল্যাটিন কমেডি অনুকরণে লেখা কমেডি ও কিছু ইতিহাসাশ্রিত নাটকের মধ্যে দিয়ে নাট্য জগতে পরিচয় লাভ করেনI তবে তাঁকে খ্যাতির অসীম উচ্চতায় নিয়ে যায় 'অ্যাজ ইউ লাইক ইট', 'টুয়েল্ফথ নাইট', 'আ মিডসামার নাইট'স ড্রিম' এর মতো 'রোমান্টিক কমেডি', 'ম্যাকবেথ', 'হ্যামলেট', 'কিং লেয়ার', 'ওথেলো'-র মতো মানবকেন্দ্রিক ট্র্যাজেডি ও 'পেরিক্লেস', 'সিম্বেলাইন', 'দি উইন্টার'স টেল' ও 'দি টেম্পেস্ট' এর মতো রোমান্সধর্মী নাটকগুলিI মানুষের দোষ, গুণ, মোহ, দুর্বলতা, লোভ, রাগ, দ্বেষ, বিরাগ-সম্বলিত শেকসপিয়রের নাটকে বিশেষ ভাবে মানুষের জটিল মনস্তত্বের দিক গুলি উন্মোচিত হয়I শেকসপিয়রের সমসাময়িক বেন জনসন এসময়ের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নাট্যকার যিনি 'কমেডি অফ হিউমার্স' আঙ্গিকে 'ভোলপনে', 'এপিসিন' -এর মতো নাটক উপহার দিয়েছেনI এছাড়াও শেকসপিয়রের সমসাময়িককালের অন্যতম উল্লেখযোগ্য নাট্যকারেরা হলেন জর্জ চ্যাপম্যান, থমাস হেউড, থমাস ডেকার, জন মারস্টন, থমাস মিডলটন প্রমুখI শেকসপিয়রের পদাঙ্ক অনুসরণকারী নাট্যকারদের মধ্যে জন ওয়েবস্টার, ফ্রান্সিস বিউমন্ট ও জন ফ্লেচার এর নাম বিশেষ ভাবে উঠে আসেI নাটকের পাশাপাশি গদ্যকার ফ্রান্সিস বেকনের 'এসেস', 'অ্যাডভান্সমেন্ট অফ লার্নিং', 'নোভাম অর্গানাম' এসময়ের উল্লেখযোগ্য সাহিত্যসৃষ্টিI

জ্যাকোবিয়ান পিরিয়ডে ভিন্নস্বাদের জ্ঞানদীপ্ত, বুদ্ধিদীপ্ত, বিচক্ষণতাপূর্ণ কবিতা নিয়ে সাহিত্য পরিসরে আবির্ভাব ঘটে 'মেটাফিজিক্যাল' কবিদের যাঁদের মধ্যে জন ডানের নাম সর্বাগ্রে আসেI এছাড়াও এযুগের  উল্লেখযোগ্য 'মেটাফিজিক্যাল' কবিরা হলেন জর্জ হার্বার্ট, অ্যান্ড্রু মার্ভেল, রিচার্ড ক্র্যাশ ও হেনরি ভনI এঁদের কবিতায় 'কন্সিট' বা একপ্রকার অতিদীর্ঘায়িত রূপকের বহুল ব্যবহার দেখা যায়I বিষয়ের ভিত্তিতে এই কবিতাগুলিকে প্রেমকেন্দ্রিক ও ধর্মকেন্দ্রিক এই দুইভাগে ভাগ করা যেতে পারেI  ইংরেজি সাহিত্যের স্বর্ণযুগের গতি-প্রকৃতি ও মাত্র কিছু সংখ্যক মণি-মুক্তো তুলে ধরার চেষ্টা করলাম এই সীমিত আলোচনায়I
------

Comments

Trending Posts

‘পথের পাঁচালী’ এবং সত্যজিৎ রায় : একটি আলোচনা/কোয়েলিয়া বিশ্বাস

সনাতন দাস (চিত্রশিল্পী, তমলুক) /ভাস্করব্রত পতি

ছোটোবেলা বিশেষ সংখ্যা ১১০

সর্বকালের প্রবাদপ্রতিম কবিসত্তা শক্তি চট্টোপাধ্যায় /প্রসূন কাঞ্জিলাল

শঙ্কুর ‘মিরাকিউরল’ বড়িই কি তবে করোনার ওষুধ!/মৌসুমী ঘোষ

প্রাচীন বাংলার জনপদ /প্রসূন কাঞ্জিলাল

বাংলা ব্যাকরণ ও বিতর্কপর্ব ১৮/অসীম ভুঁইয়া

রাষ্ট্রীয় মূল্যায়ন ও স্বীকৃতি পরিষদ (NAAC) এর মূল্যায়ন ও স্বীকৃতি: উদ্দেশ্য ও প্রস্তুতি - কলেজ ভিত্তিক অভিজ্ঞতা /সজল কুমার মাইতি