লাল কাপ্তান : ডাকু জ্যাক স্পেরোর বেশে খুনী নাগা সাধু !

লাল কাপ্তান : ডাকু জ্যাক স্পেরোর বেশে খুনী নাগা সাধু ! 

রেটিং – 2/5 

পরিচালক – নভদীপ সিং 

অভিনয়ে - সইফ আলি খান, মানব ভিজ, দীপক দোবরিয়াল, জোয়া হুসেন, সিমোন সিং

রিলিজ – ১৮ অক্টোবর, ২০১৯ ।  


অতীত কখনও মানুষের পিছু ছাড়েনা। তাই অতীতকে ভুলে যাওয়ার চেষ্টা বৃথা। নিজেকে বিপদমুক্ত রাখতে সিংহ, সাপ আর কালের মত নিজের কালো অতীতকে ঘুম পাড়িয়ে রাখতে, তাকে লুকিয়ে ফেলতে বৃথা চেষ্টা করে চলে মানুষ। লোভ, মোক্ষ, সাহস এবং সর্বোপরি এক তীব্র প্রতিহিংসার অন্য ধারার গল্প বলার চেষ্টা করে সইফ আলি খান অভিনীত 'লাল কাপ্তান'। ইতিহাসের পাতা উল্টে স্বাধীনতা যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির সঙ্গে লড়াইয়ের এক রহস্যের কাহিনি বলছে সইফ অভিনীত 'লাল কাপ্তান'। এই কাহিনির প্রেক্ষাপট ১৭৬৪ সালের অক্টোবর। সেই সময়ে বক্সার যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে যুদ্ধক্ষেত্রের বাইরে ঘটে যায় বিশ্বাসঘাতকতার এক রক্তিম খেলা। এই মারণ খেলায় মৃত্যু হয় এক স্বাধীনচেতা রাজপুত্রের আরা নবজন্ম হয় গোসাঁই নামের এক নাগা সাধুর (সইফ আলি খান)। রেহমত খান (মানব ভিজ) নামে এক পাঠান অধ্যুষিত বুন্দেলখন্ডের রুক্ষ পাথুরে এলাকায় এই নাগা সাধুর দাপট ও তার সাহসের গল্প বলেছে ছবিটি। কি সম্পর্ক রয়েছে রেহমত খান আর তার শিকারে বের হওয়া নাগা গোঁসাইয়ের মধ্যে? শিকার ও শিকারির এই চিরাচরিত ‘চুহা বিল্লি কা খেল’-এর গল্প বলে এই মুভি।  
বলিউডে কার্যত ধরাশায়ী কেরিয়ারে 'লাল কপ্তানকে' ধরেই ফের একবার জোয়ার আনবার চেষ্টা করেছেন নবাবী অভিনেতা। পর্দায় নিজের চরিত্র চিত্রায়ণ থেকে নিজের অভিনয় দাপটে 'লাল কাপ্তান' এ মরিয়াভাবে ফিরে আসবার চেষ্টা করেছেন 'অভিনেতা' সইফ। কিন্তু গল্পে বিশেষ কিছু না থাকায় চিত্রনাট্য অতিমাত্রায় চরিত্রকেন্দ্রিক হয়ে পড়ায় সিনেমার গতি এবং দর্শকদের আগ্রহ উভয়ই কমেছে। নভদীপ সিং-এর পরিচালিত এই ছবি অনেকাংশেই বুন্দেলখণ্ডের রুক্ষতায় ঠাসা। চরিত্র ভিত্তিক এই ছবির স্ক্রিপ্ট যেন সইফকে ধরেই লিখেছিলেন পরিচালক নভদীপ। তবে অনেকাংশেই সংলাপের দিক থেকে এই ঐতিহাসিক রহস্যকাহিনিতে পিছিয়ে পড়েছেন পরিচালক। সিনেমাটোগ্রাফির মধ্যে সেই সময়কার মেজাজ ফুটিয়ে তোলা হয়েছে খুব নৈপুন্যের সাথে। আলো আঁধারের এক ডার্ক টোন রয়েছে ছবি জুড়ে যা গোঁসাইয়ের চরিত্রের ছাইচাপা আগুনকে পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে সহায়ক হয়েছে। কিছু কিছু দৃশ্য গায়ে কাঁটা দেয়। ভালো ছবি হয়ে ওঠার অনেক মশলা থাকলেও গতিহীন চিত্রনাট্য এবং ‘খুন কা বদলা খুন’ এর সেই মান্ধাতার আমলের মেইন প্লটের জন্য শেষপর্যন্ত ঝুলে গেল ছবি। 


রেটিং : 
5 অসাধারণ 
4 বেশ ভালো 
3 ভালো 
2 দেখতে পারেন
1 না দেখলেও চলবে

Comments

Trending Posts

‘পথের পাঁচালী’ এবং সত্যজিৎ রায় : একটি আলোচনা/কোয়েলিয়া বিশ্বাস

সনাতন দাস (চিত্রশিল্পী, তমলুক) /ভাস্করব্রত পতি

সর্বকালের প্রবাদপ্রতিম কবিসত্তা শক্তি চট্টোপাধ্যায় /প্রসূন কাঞ্জিলাল

ছোটোবেলা বিশেষ সংখ্যা ১১০

শঙ্কুর ‘মিরাকিউরল’ বড়িই কি তবে করোনার ওষুধ!/মৌসুমী ঘোষ

বাংলা ব্যাকরণ ও বিতর্কপর্ব ১৮/অসীম ভুঁইয়া

প্রাচীন বাংলার জনপদ /প্রসূন কাঞ্জিলাল

রাষ্ট্রীয় মূল্যায়ন ও স্বীকৃতি পরিষদ (NAAC) এর মূল্যায়ন ও স্বীকৃতি: উদ্দেশ্য ও প্রস্তুতি - কলেজ ভিত্তিক অভিজ্ঞতা /সজল কুমার মাইতি