সোনামনি /বিশ্বরূপ বন্দ্যোপাধ্যায়

দীর্ঘ কবিতা

সোনামনি
বিশ্বরূপ বন্দ্যোপাধ্যায়



' নারীকে আপন ভাগ্য জয় করিবার
   কেন নাহি দিবে অধিকার, হে বিধাতা' ?
'সবলা'--   রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর 

            ***   ***   ***   ***

সোনামণি তাকে সকলেই ডাকে এটা তার নাম নয়,
চন্দ্রবদনী, তন্বী তরুণী রূপ ই তার পরিচয় ,
দিব্য কান্তি, সুডৌল তনু অতি লাবণ্য ময়,
সুদেহিনী নারী, সুনিতম্বিনী মদালসা মনে হয় ।

বরবর্ণিনী , অতি সুন্দরী প্রিয় দর্শিনী সে , 
লিপ্সু জনের মন টেনে নেয় পলকে  অক্লেশে,
মৃণাল বাহুর পরশে জাগায় রোমাঞ্চ সব প্রাণে,
পুরুষের মন - সুরূপা এ ধনি পলকেতে কাছে টানে ।

অনেকেই তাকে দোষ দিয়ে বলে, "এ মেয়ে সর্বনাশী,
সুখী সংসার করে চুরমার গৃহী হয় পরবাসী ",
তার আকর্ষণে নীতিহীন কাজ ঘটে নাকি অবিরত,
দুস্কৃতি যত কুক্রিয়ান্বিত হয়ে চলে শত শত।

অভিনয় করে সিনেমা টিভিতে স্বল্পবসনা হয়ে,
এসব চিত্র নয় পবিত্র সমাজটা চলে ক্ষয়ে,
গাঢ় যৌবনা মেয়েটিকে তাই সবে দোষ দিয়ে চলে,
'প্রযোজকদের পরিকল্পনা' জানে না কি সক্কলে ?

দুশ্চরিত্র দূরাচারী যারা সদা অনাচার করে ,
তারা নির্দোষ(?) এ মেয়েই নাকি তাদেরকে আনে ধরে,
এই মেয়ের নাকি  একটাই ঝোঁক -'সে হবে সবার সেরা,
লুব্ধ নয়নে তাকেই দেখবে বিশ্বের পুরুষেরা' ।

ড্রাগ , ম্যান্ডরেক্স, মাদক পাচারে সেই নাকি কারবারী
রটনা কতো কি করে চলে লোকে ভাবে যেটা  দরকারী,
বারে বারে যদি মিথ্যাটা শোনে লোকে তো সেটাই ধরে,
প্রচারের যুগে কোনটা সত্য কে তার বিচার করে ?

নেহাতই তরুণী সোনামণি তার জ্ঞানটাও বেশি নয় ,
জানেনা কিভাবে চলে এ  জগত, কিভাবে চলতে হয় ,
অভিনয় গুণে,রূপে,লাবণ্যে সকলেই তাকে চেনে,
কপটাচারীর ধূর্ততা তাকে  কুপথে নামায় টেনে ।।

গরীবেরে সোনা ভালোবাসো সেটা শুনেছি তাদেরই মুখে,
তাদের দুঃখ সইতে পারে না মন তার ভরে দুখে,
পাশেতে দাঁড়ায়, সহায়তা দেয় - এ কথা অনেকে বলে,
সোনার অর্থে তাদের অনেকের দিন কোনো মতে চলে ।।

পর্ণ পিকচারে' তার নটি সাজা সেটাও তো অপচার,
কারা তা তুলছে,  কাদের জন্য, লাভটা হচ্ছে কার?
পুরুষ-শাসিত  সমাজেতে  নারী হারায় যে  অধিকার ,
 অসহায় মৃগ সোনামণি তাই সয় শিকারীর 'মার' ।।

অতি সাবধানে থেকো সোনামণি জটিল এই সংসারে,
স্বৈরী মানুষ ইন্দ্রিয়সেবী ঘোরে ফেরে চারিধারে ,
সত্যসন্ধ মানুষও তো আছে উদার স্বভাব যার ,
তাদের আশ্রয়, সুবুদ্ধি নিয়ে পথটা চ'লো এবার ।।

ফাঁদে যেন আর আটকে পড়ো না এটুকুই অনুরোধ,
হারিয়ে ফেলোনা স্বচ্ছ বুদ্ধি, হারিয়ে ফেলে না বোধ,
তোমার প্ৰতিভা অক্ষত  হোক অভিনয় কলা মাঝে,
এ অভিনয়ের মধু নিক্বণ  সব কানে যেন বাজে ।

জ্বলদর্চি পেজে লাইক দিন👇
 

Comments

Post a Comment

Trending Posts

‘পথের পাঁচালী’ এবং সত্যজিৎ রায় : একটি আলোচনা/কোয়েলিয়া বিশ্বাস

সনাতন দাস (চিত্রশিল্পী, তমলুক) /ভাস্করব্রত পতি

সর্বকালের প্রবাদপ্রতিম কবিসত্তা শক্তি চট্টোপাধ্যায় /প্রসূন কাঞ্জিলাল

ছোটোবেলা বিশেষ সংখ্যা ১১০

শঙ্কুর ‘মিরাকিউরল’ বড়িই কি তবে করোনার ওষুধ!/মৌসুমী ঘোষ

বাংলা ব্যাকরণ ও বিতর্কপর্ব ১৮/অসীম ভুঁইয়া

প্রাচীন বাংলার জনপদ /প্রসূন কাঞ্জিলাল

রাষ্ট্রীয় মূল্যায়ন ও স্বীকৃতি পরিষদ (NAAC) এর মূল্যায়ন ও স্বীকৃতি: উদ্দেশ্য ও প্রস্তুতি - কলেজ ভিত্তিক অভিজ্ঞতা /সজল কুমার মাইতি