১৯ মে ২০২১

Today is the 19 May, 2021
আজকের দিন 
বাংলায় ---৪ জ্যৈষ্ঠ বুধবার ১৪২৮

প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর পৃথিবী জুড়ে মানবিক মূল্যবোধের চরম সংকটময় মুহূর্তে বাংলা কথা-সাহিত্যে মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের আবির্ভাব। ১৯০৮ সালে আজকের দিনে তিনি জন্মেছিলেন। আসল নাম প্রবোধকুমার বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর রচিত পুতুলনাচের ইতিকথা, দিবারাত্রির কাব্য, পদ্মা নদীর মাঝি ইত্যাদি উপন্যাস ও অতসীমামী, প্রাগৈতিহাসিক, ছোটবকুলপুরের যাত্রী ইত্যাদি গল্প বাংলা সাহিত্যের অন্যতম শ্রেষ্ঠ সম্পদ বলে বিবেচিত হয়।

ভারতের ৬ষ্ঠ রাষ্ট্রপতি নীলম সঞ্জীব রেড্ডি ১৯১৩  সালে আজকের দিনে জন্মেছিলেন। তিনি এই পদে ১৯৭৭ -- ১৯৮২ পর্যন্ত অধিষ্ঠিত ছিলেন। তিনিই একমাত্র রাষ্ট্রপতি যিনি এই পদে সর্বসম্মতিক্রমে নির্বাচিত হন।

বাঙালী লোকসংগীত শিল্পী ও লেখক অমর পাল  ১৯২২ সালে আজকের দিনে জন্মেছিলেন। আকাশবাণী কলকাতা কেন্দ্রের লোকসংগীতের শিল্পী হিসেবে  প্রথম লোকসংগীত পরিবেশন করেন ১৯৫১ সালে। তিনি দেবকী কুমার বসু, সত্যজিৎ রায়, ঋতুপর্ণ ঘোষের ছবিতে গান গেয়ে দারুণ প্রশংসিত হয়েছেন। সত্যজিৎ রায় পরিচালিত ‘হীরক রাজার দেশে’ ছবিতে তাঁর গাওয়া ‘আমি কতই রঙ্গ দেখি দুনিয়ায়’ আজও সমান জনপ্রিয় ও প্রাসঙ্গিক।

ব্রিটিশ বংশোদ্ভূত ভারতীয় লেখক রাস্কিন বন্ড ১৯৩৪ সালে আজকের দিনে জন্মেছিলেন। প্রথম উপন্যাস 'দ্য রুম অন দ্য রুফ' লিখেছিলেন ১৭ বছর বয়সে। Our Trees Still Grow in Dehra লেখার জন্য ১৯৯২ সালে তিনি সাহিত্য অ্যাকাডেমি পুরস্কারে সম্মানিত হয়েছেন। জন্মদিনে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। 

জ্ঞানপীঠ পুরস্কারে সম্মানিত গিরিশ রঘুনাথ কারনাড ১৯৩৮ সালে আজকের দিনে জন্মেছিলেন। ইনি ছিলেন একাধারে একজন ভারতীয় ভাষাবিজ্ঞানী, চলচ্চিত্র পরিচালক, অভিনয়শিল্পী, অনুবাদক, চিত্রনাট্যকার ও লেখক। যযাতি’,তুঘলক’,  ‘হায়বদন’,‘নাগমন্ডল’ -এর মতো বিখ্যাত নাটকের সঙ্গে জড়িয়ে আছে তাঁর নাম। হিন্দি ছাড়াও আরও বেশ কয়েকটি ভাষায় অভিনয় করেছেন। পরিচালক হিসেবেও কাজ করেছিলেন।

ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেতা নওয়াজুদ্দীন সিদ্দিকী  ১৯৭৪ সালে আজকের দিনে জন্মেছিলেন।  হিন্দিতে বেশ কিছু জনপ্রিয় চলচ্চিত্রে অসাধারণ অভিনয়ের মাধ্যমে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। তার উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রসমূহের মধ্যে রয়েছে; ব্ল্যাক ফ্রাইডে, নিউ ইয়র্ক,  পিপলি লাইভ,  কাহানি , গ্যাংস অব ওয়াসিপুর, গ্যাংস অব ওয়াসিপুর - ২য় পর্ব,  তালাশ,  বদলাপুর  এবং বজরঙ্গি ভাইজান, দ্য লাঞ্চবক্স। জন্মদিনে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।
ইতিহাস থেকে জানা যায়, রাজস্থানের রাজপুত ঘরানার রাজা ভারমালের জ্যেষ্ঠ কন্যা হীরাবাঈ ১৬২৩ সালে আজকের দিনে প্রয়াত হয়েছিলেন। ইনি ইতিহাসসে যোধাবাঈ নামে সুপরিচিত। আকবরের ১ম রাজপুত স্ত্রী ও সম্রাট জাহাঙ্গীরের মা।

ভারতের অগ্রণী শিল্পপতি জামসেটজি নুসেরওয়ানজি টাটা ১৯০৪ সালে আজকের দিনে প্রয়াত হয়েছিলেন।ইনি ভারতের বৃহত্তম সংঘবদ্ধ সংস্থা টাটা গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তিনি জামশেদপুর শহর প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। ইনি 'ভারতীয় শিল্পের জনক' হিসাবে বিবেচিত।

স্বনামধন্য বাঙালি ইতিহাসবিদ স্যার যদুনাথ সরকার ১৯৫৮ সালে আজকের দিনে প্রয়াত হয়েছিলেন। তিনিই প্রথম মীর্জা নাথান রচিত বাহারিস্তান-ই-গায়বী’র পাণ্ডুলিপি ফ্রান্সের প্যারিসে অবস্থিত জাতীয় গ্রন্থাগারে খুঁজে পান এবং এ বিষয়ে বিভিন্ন জার্নালে বাংলা ও ইংরেজিতে প্রবন্ধ লিখে বিশেষজ্ঞদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।ভারতবর্ষের ইতিহাস রচনার বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে গবেষণার  পথ প্রদর্শক ছিলেন। এই কারণে দেশবাসী তাঁকে আচার্য হিসাবে বরণ করেছিলেন।ইতিহাস শাস্ত্রে অসাধারণ ও প্রগাঢ় জ্ঞানের অধিকারী এই ব্যাক্তি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নোবেল পুরস্কার পাবার আগেই তিনি কবির রচনার ইংরেজি অনুবাদ করে পাশ্চাত্য জগতের কাছে তাঁর  পরিচয় তুলে ধরেন।

খ্যাতনামা আইনজীবী সৌরীন্দ্রমোহন মুখোপাধ্যায়  ১৯৬৬ সালে আজকের দিনে প্রয়াত হয়েছিলেন।পেশায় আইনজীবী হলেও নেশায় ছিলেন সাহিত্য-শিল্পকর্মী। ১৯০২ খ্রিস্টাব্দে সাহিত্য প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে 'কুন্তলীন পুরস্কার' লাভ করেন। তিনি অনর্গল রায়, অপ্রকাশ গুপ্ত, বৈকুন্ঠ শর্মা, সত্যব্রত শর্মা প্রভৃতি ছদ্মনাম ব্যবহার করতেন। এই সাহিত্যিক ও অনুবাদক প্রায় দু'শো গ্রন্থ রচনা করেছেন।


বিশিষ্ট বাঙালি প্রাবন্ধিক কাজী আবদুল ওদুদ ১৯৭০ সালে আজকের দিনে প্রয়াত হয়েছিলেন। ইনি একজন  বিশিষ্ট সমালোচক, নাট্যকার ও জীবনীকার ছিলেন।শাশ্বত বঙ্গ, সমাজ ও সাহিত্য, 
রবীন্দ্রকাব্য পাঠ, হিন্দু-মুসলমান বিরোধ ইত্যাদি তাঁর উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ।

বাংলা  নাট্যজগতের  কিংবদন্তি ব্যক্তিত্ব শম্ভু মিত্র  ১৯৯৭ সালে আজকের দিনে প্রয়াত হয়েছিলেন। তিনি ছিলেন স্বনামধন্য আবৃত্তিশিল্পী ও চলচ্চিত্র অভিনেতাও। ভারতীয় গণনাট্য সংঘের এই  সদস্য  ১৯৪৮ সালে মনোরঞ্জন ভট্টাচার্যের নেতৃত্বে গড়ে তোলেন নাট্যসংস্থা বহুরূপী। ১৯৪৯  - ১৯৭১ সাল পর্যন্ত বহুরূপীর প্রযোজনায় রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, সফোক্লিস, হেনরিক ইবসেন, তুলসী লাহিড়ী এবং অন্যান্য বিশিষ্ট নাট্যকারের রচনা তাঁর পরিচালনায় মঞ্চস্থ হয়। তাঁর পরিচালনায় উল্লেখযোগ্য নাটকগুলি হল নবান্ন, দশচক্র, রক্তকরবী, রাজা অয়দিপাউস ইত্যাদি। তাঁর রচিত নাটকের মধ্যে চাঁদ বণিকের পালা সর্বাপেক্ষা উল্লেখযোগ্য।১৯৭৬ সালে নাটক ও সাহিত্যে বিশেষ অবদানের জন্য তাঁকে ম্যাগসেসে পুরস্কার ও ভারত সরকার পদ্মভূষণ সম্মানে সম্মানিত করেন।

  হিন্দিভাষী ঔপন্যাসিক, প্রাবন্ধিক ও সমালোচক হাজারী প্রসাদ দ্বিবেদী ১৯৭৯ সালে আজকের দিনে প্রয়াত হয়েছিলেন। তিনি অসংখ্য উপন্যাস, প্রবন্ধ সংকলন, ভারতের মধ্যযুগীয় ধর্মীয় আন্দোলন বিশেষত কবির এবং নাথ সম্প্রদায় সম্পর্কে ঐতিহাসিক গবেষণা এবং হিন্দি সাহিত্যের ঐতিহাসিক রূপরেখা লিখেছিলেন ।হিন্দি ছাড়াও তিনি সংস্কৃত , বাংলা , পাঞ্জাবি , গুজরাটি পাশাপাশি পালি , প্রাকৃত এবং অপভ্রংশ সহ অনেক ভাষায় দক্ষ ছিলেন।Alok Parva প্রবন্ধ গ্রন্থের জন্য ১৯৭৩ সালে সাহিত্য আকাদেমি পুরস্কারে সম্মানিত হয়েছেন।

মনীষী উবাচ :
কোনো ব্যক্তি, তাঁহার যত বড়ো ক্ষমতাই থাক্, পৃথিবীর সমস্ত মানবাত্মার জন্য নিশ্চেষ্ট জড়ত্বের সুগমতা চিরদিনের জন্য বানাইয়া দিয়া যাইবেন, মানুষের এমন দুর্গতি বিশ্ববিধাতা কখনোই সহ্য করিতে পারেন না।
(রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর)
------------------------
সংকলক- রুম্পা প্রতিহার 
------------------------
জ্বলদর্চি পেজে লাইক দিন👇
আরও পড়ুন

Comments

Trending Posts

‘পথের পাঁচালী’ এবং সত্যজিৎ রায় : একটি আলোচনা/কোয়েলিয়া বিশ্বাস

সনাতন দাস (চিত্রশিল্পী, তমলুক) /ভাস্করব্রত পতি

সর্বকালের প্রবাদপ্রতিম কবিসত্তা শক্তি চট্টোপাধ্যায় /প্রসূন কাঞ্জিলাল

ছোটোবেলা বিশেষ সংখ্যা ১১০

শঙ্কুর ‘মিরাকিউরল’ বড়িই কি তবে করোনার ওষুধ!/মৌসুমী ঘোষ

বাংলা ব্যাকরণ ও বিতর্কপর্ব ১৮/অসীম ভুঁইয়া

প্রাচীন বাংলার জনপদ /প্রসূন কাঞ্জিলাল

রাষ্ট্রীয় মূল্যায়ন ও স্বীকৃতি পরিষদ (NAAC) এর মূল্যায়ন ও স্বীকৃতি: উদ্দেশ্য ও প্রস্তুতি - কলেজ ভিত্তিক অভিজ্ঞতা /সজল কুমার মাইতি